সম্মানিত দর্শক আপনাকে স্বাগতম। আমাকে Facebook Google+ এ পাবেন। কামরুলকক্স: Website Opening Problem – কিছু কিছু ওয়েবসাইট খোলতে সমস্যা এবং প্রতিকার

Website Opening Problem – কিছু কিছু ওয়েবসাইট খোলতে সমস্যা এবং প্রতিকার



একটি অভিযোগ প্রায় সব ইউজারই করে থাকেন যে তাদের নেটে সব ওয়েবসাইট খোলে না। বিশেষ করে যারা মোবাইল সিম দিয়ে নেট চালান তারাই বেশি ভোগেন এ সমস্যায়। অভিজ্ঞরা এটাকে তেমন সমস্যা মনে না করলেও নতুনদের কাছে বিরাট একটি সমস্যা এটি। মূলত এটি ISP এর নিয়ন্ত্রিত একটি বিষয়। ISP= Internet Service Provider অর্থাৎ আপনি যাদের নেটওয়ার্ক ব্যবহার করে ইন্টারনেট চালাচ্ছেন সেই হলো আপনার ISP সে ক্ষেত্রে আপনি Banglaink সিম ব্যবহার করে নেট চালালে Banglalink হলো আপনার ISP এভাবে Grameenphone, Robi, Airtel, Telekalk, Qubee, Banglalion সহ আরো অনেক ISP প্রতিষ্ঠান আছে।


প্রত্যেক ISP নিজের সিকিউরিটি বা Protocol ঠিক করতে গিয়ে নিজস্ব সেটিংস ব্যবহার করে থাকে এতে কিছু কিছু ওয়েবসাইট ঐ সব ISP থেকে খোলে না বিশেষ করে মোবাইল কোম্পানিগুলোর নেটওয়ার্কে blogger.com সাইট খোলতে সমস্যা হয় কখনো খোলে আবার কখনো খোলে না সেটিংস পরিবর্তন করলে এটি আবার ঠিক হয়ে যায়। আবার সরকারী নির্দেশে ISP গুলো কোন সাইট বন্ধ করে রাখলেও ঐসব ISP এর অধীনে থাকা নেট ব্যবহারকারীরা বন্ধ করা সাইট দেখতে পারে না। কারণ একজন ইউজারের Net Connection নিয়ন্ত্রিত হয় ISP থেকে। আমরা একটু এর প্রতিকার দেখি নিচে।

প্রতিকারঃ
উপরের সমস্যা থেকে মুক্তি পাওয়ার জন্য কয়েকভাবে চেষ্টা করা যায়। নিচে আমরা কয়েকটি পদ্ধতি নিয়ে আলোচনা করেছি। আশাকরি পদ্ধতিগুলো সবার জন্য উপকৃত হবে।

1. IP Hider সফটওয়ার ব্যবহার করে এ সমস্ত সমস্যা থেকে মুক্তি পাওয়া যায়। IP Hide সফটওয়ারগুলো ব্যবহারকারীর ISP এর Network Address পরিবর্তন করে অন্য একটি Address ব্যবহার করে থাকে। এতে User দের উপর ISP এর সকল Control কাজ করে না। ফলে বন্ধকৃত ওয়েবসাইট দেখতে সমস্যা হয় না। এটি সবচেয়ে ভাল উপায়। IP Hide করার জন্য অনেক ধরণের সফটওয়ার রয়েছে। তবে বেশিরভাগই Professional

IP Hide সফটওয়ারগুলো ইউজারের IP লুকিয়ে বিভিন্ন দেশের IP ব্যবহার করে থাকে। এতে নিজ দেশের ISP এর Control আর ইউজারের উপর থাকে না। ফলে বন্ধকৃত বা Blocked করা ওয়েবসাইট দেখা সম্ভব হয়। একটি IP দিয়ে সাধারণত ইউজারের বিস্তারিত পরিচয় পাওয়া সম্ভব হয়। কোন দেশের কোন এলাকা থেকে ইউজার নেট চালাচ্ছেন তা বিস্তারিত বের করা সম্ভব IP দিয়ে। কিন্তু Proxy IP ব্যবহার করলে এই পরিচয় বের করা কঠিন হয়ে পড়ে। যেমন আপনি http://www.tracemyip.org/, http://www.ipnow.org/, http://www.hostip.info/, http://www.ip-adress.com/ লিংকে যান। দেখুন আপনার সম্পর্কে।


2. অনলাইন Proxy Site ব্যবহারের মাধ্যমেও কাজটি করা যায়। মূলত IP Hide সফটওয়ার যেভাবে ইউজারের IP লুকিয়ে বিভিন্ন দেশের IP ব্যবহার করে থাকে Proxy Site গুলোও সেই কাজগুলো করে থাকে। হঠাৎ Block করা কোন সাইট ভিজিট করার জন্য এটি খুব ভাল পদ্ধতি। এতে কোন সফটওয়ারের প্রয়োজন হয় না। শত শত Proxy Site আছে যারা ফ্রীতে এবং পেইডে ইউজারদেরকে এ সেবা দিয়ে থাকে। কাজটি করার জন্য কোন একটি Proxy Site খোলে সেখানে নিজ দেশের Blocked সাইটর লিংক কপি করে দিয়ে রান করলেই সাইটটি খোলে যায়। সমস্যা হলো এই সাইটগুলো বেশি দিন টিকে না। Antivirus Software গুলো এসব সাইটকে নিরাপত্তার জন্য হুমকি হিসেবে চিহ্নিত করে Blocked করে দেয়। তাই সার্চ দিয়ে আপডেট সাইটগুলো দেখায় ভাল।






নিচে কয়েকটি Proxy Site এর লিংক দেয়া হলো (২০১৩ সাল এর হিসাব মতে)। এছাড়া অনলাইনে সার্চ করলে এরকম আরো অনেক Proxy Site এর লিংক পাওয়া যাবে।

1. Hidemyass:
2. Proxify:
3. Newipnow:
4. iBypass:
5. Change IP Country:
6. KProxy:
7. PageWash:
8. Browser9:
9. Anonr:
10. Megaproxy:

3. VPN Software ব্যবহার করেও একই সমস্যা থেকে মুক্তি পাওয়া যায়। VPN (Virtual Private Network) হলো উপরের IP Hide এর মত আরেকটি পদ্ধতি। এর মাধ্যমে ISP এর Network Settings পরিবর্তন করে আলাদা একটি Network Settings তৈরি করা হয়। অর্থাৎ VPN হলো ISP এর মত আরেকটি ISP যা বিভিন্ন সফটওয়ারের মাধ্যমে করা হয়ে থাকে। তবে এই সফটওয়ারগুলোও বেশিরভাগ Professional হয়ে থাকে। Virtual জিনীসটা নতুনদের বুঝতে একটু সমস্যাও হতে পারে। এটি বুঝতে হলে Virtual PC সম্পর্কে ধারণা লাভ করতে হবে। Virtual PC কোন PC নয় কিন্তু একটি আলাদা পিসিতে কাজ করার সব সুযোগ এর মাধ্যমে লাভ করা যায়।

4. DNS Server Address পরিবর্তন করেও উপরের সমস্যা থেকে মুক্তি পাওয়ার চেষ্টা করা যায়। এই কাজটি কোন সফটওয়ার ছাড়া Manually করা যায়। তবে এটি সব ক্ষেত্রে কাজ নাও করতে পারে। বিশেষ করে ISP কোন সাইট Blocked করে রাখলে এটি তেমন কাজ দেয় না। এ জন্য প্রথমে Control Panel থেকে Network Connections যান। আপনি Network Connections Settings ব্যবহার করেন তার সেটিংস পরিবর্তন করতে হবে। যেমন GP ব্যবহার করলে GP এর Network Connections Settings পরিবর্তন করতে হবে। কাজটি করার আগে প্রথমেই আপনার Internet Settings Disable করুন। এবার আপনি যে লাইন ব্যবহার করছেন সেই Connection এর উপর Right Click করে Properties এ যান।


Networking>Internet Protocol (TCP/IP)>Properties এ ক্লিক করুন। তাহলে নতুন আরেকটি Window খোলবে। ওখানে Use the following DNS Server Addresses চেক মার্ক দিন এবং Number পরিবর্তন করে দিন। যেমন 4.2.2.8, 4.2.2.5 । রকম আরো কয়েকটি Number চেক করে দেখতে পারেন। একটি কাজ না করলে অন্যটি বসিয়ে দেখতে হবে। Number বসানোর পর OK>OK দিন।




নিচে কিছু Preferred DNS Server এবং Alternate dns Server দেয়া হলো। এগুলো বিভিন্ন ব্লগ থেকে সংগ্রহ করা হয়েছে যা ইউজারের কমেন্টস করেছেন।


8.8.8.8, 8.8.4.4 



অথবা
4.2.2.5,  8.8.8.8

অথবা
4.2.2.8, 4.2.2.2 

অথবা
202.27.184.3, 202.27.184.5
অথবা
4.2.2.2, 8.8.8.8


এবার Network Connection Enable করুন। Enable/Disable করার জন্য Connection এর উপর Right Click করলে Enable/Disable পাওয়া যাবে। অথবা Net Connection বন্ধ করলেও Disable হতে পারে। Enable/Disable সাধারণত Adapter এর চিহ্ন দেখেই বুঝা যায়। যতবার Number পরিবর্তন করবেন ততবার Enable/Disable এর কাজটি করতে হবে। সবশেষে আপনার ওয়েবসাইটটি খোলে দেখুন। আশাকরি সমাধান পাবেন।

0 মন্তব্য:

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

Comments করার জন্য Gmail এ Sign in করতে হবে।