সম্মানিত দর্শক আপনাকে স্বাগতম। আমাকে Facebook Google+ এ পাবেন। কামরুলকক্স: মাইক্রোসফট ভার্সুয়াল পিসি

মাইক্রোসফট ভার্সুয়াল পিসি


ভার্সুয়াল পিসি কি বা কেন তা প্রায় সবার জানা। তাই অভিজ্ঞদের জন্য ভার্সুয়াল পিসি সম্পর্কে লেখার দরকার নেই। নতুনদের জন্য এ লেখা। ভার্সুয়াল পিসি হল একটি সফটওযার যা দিয়ে যেকোন বুটেবল ISO বা সিডি/ডিভিডিকে রান করে টেষ্ট করা যায়, নেটওয়ার্কিং শেখার ক্ষেত্রে দরকার হয়, উইন্ডোজ ইন্সটল করা, শেখা বা টেষ্ট করা ইত্যাদি কাজের জন্য ভার্সুয়াল পিসির কোন বিকল্প নেই।

ধরুন আপনি নতুন কম্পিউটার শিখছেন। আপনি চাচ্ছেন উইন্ডোজ এক্সপি ইন্সটল করা শিখবেন কিংবা একটি বুটেবল সিডি তৈরি করেছেন এবং তা টেষ্ট করে দেখবেন। এ কাজটি পুরোপুরি শেখার জন্য বা টেষ্ট করার জন্য আপনাকে কমপক্ষে ১০-১৫ বার এক্সপি সেটাপ দিয়ে দেখতে হবে। তারপরও কিছুনা কিছু  বাকি থেকে যেতে পারে। আর এ কাজটি করার জন্য আপনার বা অন্য কারো কম্পিউটারে কি কখনো এতবার সেটাপ দেয়া সম্ভব? যদি আপনি এ কাজটিই করে যান তাহলে অন্য কাজ করবেন কখন? একটা পিসিতে একবার সেটাপ দেয়ার পর অনেক কাজ থাকে যার জন্য প্রায় ২ ঘন্টা মত সময় নষ্ট হতে পারে। সবকিছু মিলিয়ে সেটাপ শেখার জন্য আপনার পিসিটি কখনো উপযুক্ত মাধ্যম নয়। আর তাই ভার্সুয়াল পিসি হতে পারে আপনার জন্য একমাত্র মাধ্যম। ফ্রি আর প্রফেশনালের মধ্যে অনেক ধরনের ভার্সুয়াল পিসি আছে। যেমন MS Virtual PC, Virtual box, VM-Ware ইত্যাদি। প্রথম দুটি ফ্রি আর শেষরটি কিনতে হবে। তন্মধ্যে MS Virtual PC আমার কাছে সেরা আর অত্যন্ত সহয । যে কেউই সহযে ব্যবহার করতে পারে। সাইজটাও ৩৫ মেঃবাঃ এর কাছাকাছি। তাই বেশি জায়গা দখল করেনা। এর মাধ্যমে যতবার ইচ্ছা আপনি Win-XP, Win-7, Ubuntu ইত্যাদি সেটাপ করা শিখতে পারেন। এতে আপনার পিসির একদম কোন ক্ষতি হবে না। ভার্সুয়াল পিসি চালানোর জন্য আপনার কম্পক্ষে Pentium4 এবং ৫১২ মেঃবাঃ র‍্যামের দরকার হবে।

MS Virtual PC তে উইন্ডোজ সেটাপ দেয়ার পর ঐটি হবে আপনার আরেকটা পিসি। অর্থাৎ একের ভিতর দুই। আপনার দুটো পিসিই একসঙ্গে চালাতে পারেন কোন সমস্যা ছাড়াই। যেমন আমি আমার ব্রডব্যান্ড লাইনের মধ্যে Host PC (আমার অরজিনাল পিসি যেটা) তে ডাউনলোড দেয়ার পর যখন কোন কিছু ব্রাউজ করলে স্পীড কমে যায়। তখন আমি আমার Guest PC (ভার্সুয়াল পিসি) তে ব্রাউজ করি। এতে স্পীডের কোন সমস্যা হয়না। এখন দেখি ভার্সুয়াল পিসি কিভাবে সেটাপ দেবেন আর কাজ করবেন। নিচের ছবিগুলোতে বর্ণনা আছে। এক ঝলকে ছবিগুলো দেখে নিন। ছবিতে ক্লিক করলে ছবিগুলো বড় হবে। প্রয়োজনে সেভ করে রাখুন আর ভার্সুয়াল পিসি ডাউনলোড করে এখ্নই প্রাকটিস শুরু করে দিন।

ইন্সটলঃ
Install করার পর All Programs থেকে Microsoft Virtual PC রান করুন। এখন আপনাকে একটা ভার্সুয়াল পিসি আরেকটা হার্ডস্ক তৈরি করতে হবে। যেকোন ড্রাইভের যেকোন জায়গায় তা করতে পারেন। ভার্সুয়াল হার্ডডিস্কের জন্য আপনার হার্ডডিস্কের প্রায় ২ জিবি মত জায়গা খরচ হবে। কিন্তু সেটা ভার্সুয়াল পিসিতে অনেক বড় সাইজ দেখঅবে। নিচের ছবিগুলো দেখে কাজ শুরু করুন।







Start এ ক্লিক করার পর আরেকটি উইন্ডো ওপেন হবে। এটিই হল আপনার ভার্সুয়াল পিসি।


 এখানে আপনার Bootable ISO বা সিডি ড্রাইভ দেখিয়ে Restart দিন।
তাহলে আপনার কম্পিউটারের মত উইন্ডোজ দেয়া শুরু হবে এর মাধ্যমে। উইন্ডোজ সেটাপে নতুন হয়ে থাকলে Windows XP Setup, Windows 7 Setup, Windows 8/8.1 Setup নিয়ে লেখা আমার পোস্টগুলো দেখতে পারেন
সেটাপের অর্ধেক পথে যদি বিদ্যুৎ চলে যায় বা কোন গুরুত্বপূর্ণ কাজ পড়ে যায় তাহলে ভয় নেই। উপরের ডান পাশে x চিহ্নতে ক্লিক করুন। নিচের মত মেসেজ আসবে।

ওখানে থেকে Save State এ ক্লিক করুন। কিছুক্ষণের মধ্যে বর্তমান অবস্থাটা সেভ করে ভার্সুয়াল পিসি ক্লোজ হয়ে যাবে। এবার বাকি উইন্ডোটা ক্লোজ করে আপনার Host PC (অরজিনাল পিসি) বন্ধ/শাট ডাউন করে দিতে পারেন। যখন আবার সময় পাবেন তখন Microsoft Virtual PC সফটওয়ারটি রান করুন এবং Start এ ক্লিক করুন। 

কিছুক্ষণের মধ্যেই পূর্বের অবস্থা থেকে পুণরায় কাজ শুরু হবে। এভাবে যতবার দরকার আপনার ভার্সুয়াল পিসিকে সেভ করে রাখতে পারেন। এমনকি উইন্ডোজ দেয়ার পরও এ সুবিধা পাবেন আপনি। সফটওয়ারটির Settings এ ক্লিক করে সেটিংস পরিবর্তন করতে পারেন, Remove এ ক্লিক করে বর্তমান ভার্সুয়াল পিসিটা ডিলিট করতে পারেন, New তে ক্লিক করে আরো অনেক ভার্সুয়াল পিসি তৈরি করতে পারেন। তবে এক্ষেত্রে আপনার প্রচুর RAM এর দরকরার হবে। উইন্ডোজ সেটাপ হয়ে গেলে Virtual PC Addition Setup করতে পারেন।
 
মাউসের কার্সর Host PC তে আনার জন্য কী-বোর্ড থেকে ডানপাশের Alt কী-টি একবার চাপুন। আরো পড়ুন Virtual PC Addition Install, VHD to HDD

Customize XP'র উপর সম্পূর্ণ টিউটোরিয়াল তৈরি করি মনের মত এক্সপি সিডি

Download: MS Virtual PC 2007, SP1Windows Virtual PC (msu File), Softpedia (msu File)

0 মন্তব্য:

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

Comments করার জন্য Gmail এ Sign in করতে হবে।