সম্মানিত দর্শক আপনাকে স্বাগতম। আমাকে Facebook Google+ এ পাবেন। কামরুলকক্স

Recuva- হারানো ডকুমেন্ট ফিরিয়ে আনার চেষ্টা করুন




প্রতিদিন নানান জিনীস কম্পিউটারে সেভ করে রাখতে রাখতে এক সময় দেখা যায় হার্ডডিস্ক এভাবে ভরে গেছে যে সামান্য কিছু ডকুমেন্ট রাখার জায়গায় থাকে না। এ অবস্থায় হার্ডডিস্কে রাখা অপ্রয়োজনীয় Document Delete করে হার্ডডিস্কের জায়গা খালি করা বুদ্ধিমানের কাজ। কিন্তু তাড়াহুড়া করে ডিলিট করতে গিয়ে বা মাঝেমধ্যে ভুলক্রমে অনেক গুরুত্বপূর্ণ জিনীসও হার্ডডিস্ক থেকে মুছে যায়। এ অবস্থায় গুরুত্বপূর্ণ Data Recover করা খুবই জরুরী হয়ে পড়ে যার জন্য দরকরার হয় একটি Data Recovery Tool. Recuva তেমন একটি টুল যা দিয়ে Lost, Deleted Data Recover করা যায়।

মাত্র একজন মেয়ের জন্য রেলওয়ে স্টেশন!


জাপানের একটি জনহীন রেলওয়ে স্টেশন শুধুমাত্র এক ছাত্রীর জন্য এখনও চালু রয়েছে। যাতে সে ঠিক সময়ে স্কুলে পৌঁছতে পারে। জায়গাটি জাপানের হোক্কাইডো দ্বীপের একদম উত্তর প্রান্তের কামি শিরাতাকি স্টেশন। 

এক পিলারেই তিন দেশের সীমানা


জার্মানির নর্দান ওয়েস্ট ফাল রাজ্যের আখেন সিটি প্রতিবেশী তিন দেশের সীমানা প্রাচীরের জন্য বিখ্যাত হয়ে আছে। এখানকার সীমান্ত পিলারটি নেদারল্যান্ডস, জার্মানি ও বেলজিয়ামকে পৃথক করে দিয়েছে। আর এই কারণেই পিলারটির নাম দেওয়া হয়েছে থ্রি ল্যান্ড পয়েন্ট। জার্মান ভাষায় যাকে বলা হয় ড্রাইল্যান্ডার অ্যাক। ড্রাইল্যান্ডার অ্যাক পিলারের তিন দিকে রয়েছে ওই তিন দেশের তিন শহর। জার্মানির আখেন, নেদারল্যান্ডসের ফালস্ (ডাচ ভাষায় ভালস) ও বেলজিয়ামের কেলমিস (লা কালামিনে) অবশ্য ফরাসীরা একে বলেন লা স্যাপেল।  

ক্লিন শেভড পুরুষের মুখেই জীবাণু বেশি!


দাড়িওয়ালাদের চেয়ে ক্লিন শেভড পুরুষের মুখে জীবাণু বেশি থাকে বলে জানিয়েছেন বিজ্ঞানী ও গবেষকরা। যুক্তরাষ্ট্রের একটি হাসপাতাল পরিচালিত গবেষণার ফলাফলের ভিত্তিতে এ তথ্য জানিয়েছে 'জার্নাল অব হসপিটাল ইনফেকশন'। প্রতিবেদনে বলা হয়, দাড়িওয়ালাদের চেয়ে বরং দাড়ি কামানো পুরুষের মুখেই বেশি রোগ-জীবাণু পাওয়া গেছে। 

হাজার বিড়াল নিয়ে সংসার যার...(ভিডিওসহ)


তরুণী লিনিয়াকে তার বাবা একটা বিড়াল পোষার কথা বলেছিলেন। তিনি তখন ঘরে নিয়ে এসেছিলেন ১৫টা বিড়ালের বাচ্চা। সেটা ১৯৯২ সাল। লিনিয়া লাতানজিয়োর বয়স এখন ৬৭। বিড়ালের সংখ্যা এক হাজার ১০০। এর মধ্যে ৮০০টা বড় বিড়াল, আর বাচ্চা ৩০০।   রাস্তায় ঘুরে বেড়ানো অসুস্থ, ক্ষুধার্ত বিড়ালগুলোকে তুলে এনে একেবারে অনাথ আশ্রমের কায়দায় বাড়িতে পোষেন লিনিয়া। এখন তিনি 'ক্যাট লেডি' নামে পরিচিত।